বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছায় বাল্য বিবাহ বন্ধ সহ অর্থ দন্ড প্রদান করেন-ইউএনও মাহেরা নাজনীন খুলনার গাইকুরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রামপালে উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১২ জনের মনোনয়নপত্র জমা পূত্র পাচারের অভিযেগে এক নারীর বিরুদ্ধে আড়ংঘাটা থানায় অভিযোগ দিঘলিয়া উপজেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত মোংলা-ঘোষিয়াখালী চ্যানেলের তীরভূমি দখলের মহোৎসব; নাব্যতা সঙ্কটের শংকা পাইকগাছায় ১ম ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ একাডেমির উদ্বোধন খুলনায় পহেলা বৈশাখ উদযাপন বাঙালি জাতির শাশ্বত ঐতিহ্যের প্রধান অঙ্গ পহেলা বৈশাখ : রাষ্ট্রপতি মুক্তিপণ পেয়ে জাহাজ ছাড়ে জলদস্যুরা, নাবিকরা সুস্থ : মালিক পক্ষ

খুলনা জেলা পরিষদের বিভিন্ন প্রজাতির শতাধিক গাছ কেটে নেওয়া অভিযোগ

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২৩

 

খুলনা জেলা প্রতিনিধি।।খুলনায় জেলা পরিষদের মালিকানাধীন জায়গার মেহগনি শিরিষসহ বিভিন্ন প্রজাতির শতাধিক গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় এক প্রভাবশালী ঠিকাদার কর্তৃক অবৈধ ভাবে এসব কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে আজ শনিবার ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বাজারে।

 

এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, খুলনা জেলা পরিষদের মালিকানাধীন ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বাজারে অবস্হিত ডাক বাংলোর ভিতরে মেহগনিসহ বিভিন্ন প্রজাতির ছোট বড় অনেক গাছ লাগানো রয়েছে। ওই গাছগুলির মধ্যে থেকে স্হানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি ফরহাদ হোসেন (বাবু) এর নেতৃত্বে কাঠ ব্যবসায়ী চাকুন্দিয়া গ্রামের মোয়াজ্জেম শেখসহ তার আরো কয়েক জন সহযোগী শ্রমিক নিযুক্ত করে গত শুক্রবার সকাল থেকে অবৈধভাবে মূল্যবান মেহগনি, শিরিসসহ শতাধিক মূল্যবান বিভিন্ন প্রজাতির বনজ ও ফলজ গাছ কেটে আজ শনিবার গাছগুলো অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে।যার আনুমিক মূল্য প্রায় ৭ লক্ষাধিক টাকা।

অভিযোগের বিষয় জানতে চাইলে ফরহাদ হোসেন বাবু’র গাছ কেটে নেয়ার বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে তিনি বলেন, ‘ডাক বাংলার জায়গায় একটি দ্বিতল ভবন নির্মাণ করতে যাচ্ছে জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ।যার নিচের তলায় থাকবে মার্কেট। উপরে তলায় ডাক বাংলো।আমি মার্কেট নির্মানের জন্যে ঠিকাদারীর দায়ীত্ব পেয়েছি। ভবন নির্মাণ করতে যে কারণে কিছু গাছ কাটতে হচ্ছে।বিষয়টি জেলা পরিষদের চেয়াম্যান সাহেবের সাথে কথা বলে বিস্তারিত জানতে পারেন’।

এই বিষয়ে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এম.এম. মাহমুদুর রহমান বলেন, চুকনগর ডাক বাংলোর জমিতে মার্কেট নির্মাণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।আমার জানা মতে এখনও কোন টেন্ডার বা কাউকে দায়ীত্ব দেয়া হয়নি। তা ছড়া লিখিত ভাবে ছাড়া এসব বিষয়ে কাউকে দায়ীত্ব দেয়া তো ঠিক না। তবে গাছ কাটার বিষয়টি আমি শুনেছি।

এ বিষয়ে খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি শুনেছি জেলা পরিষদের ৫/৭ টি গাছ কর্তন করা হয়েছে।বিষয়টি শোনার পর আজ(শনিবার) দুপুরে গাছ কাটা বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park