মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পুলিশ ও র‍্যাব এর যৌথ অভিযানে উদ্ধার হলো মহাসিন স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পূত্র শাফিন বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড আজ কেসিসির সাবেক কাউন্সিলর পিন্টুর বাসভবনে হামলার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন পাইকগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পানি সংরক্ষণের জলাধার বিতরণ খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা ছোট পর্দার অভিনেতা রুমির ইন্তেকাল প্রচণ্ড দাবদাহে খুলনায় কেএমপি কমিশনারের উদ্যোগে বিশুদ্ধ খাবার পানি, জুস ও স্যালাইন বিতরণ খুলনা আড়ংঘাটা বাইপাস আকমলের মোড়ে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার আইজিপি কাপ ক্রিকেটে পুলিশ স্টাফ কলেজ তৃতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন এবং খুলনা রেঞ্জ রানার আপ

যশোরে হারিয়ে যাওয়া ৪০টি মোবাইল, দেড় লাখ টাকা ও ৬ জন নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধার

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২২

ডেস্ক রিপোর্ট;যশোরের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল ৪০টি হারানো মোবাইল ফোন, মোবাইল অ্যাপস নগদ ও বিকাশ থেকে খোয়ানো দেড় লাখ টাকা এবং হ্যাকিং হওয়া ৬টি ফেইসবুক আইডি উদ্ধার করেছে। এছাড়া নিখোঁজ হওয়া ৬ ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে। আজ সকালে প্রকৃত মালিকের কাছে উদ্ধার হওয়া ওই টাকা মোবাইল ফেরত দেয়া হয়েছে। সেলের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খ সার্কেল মুকিত সরকার পুলিশ অফিস কনফারেন্স রুমে এগুলো হস্তান্তর করেন।

গত বছর থেকে সেলটি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ধরনের বিভ্রান্তিমূলক পোস্ট, মন্তব্য, ছবি আপলোড, গুজব, বিকাশ প্রতারণাসহ সাইবার স্পেসে নারী হয়রানি রোধে কাজ শুরু করে। সাইবার স্পেসে নারী প্রতারণা বা হয়রানীর শিকার হলে এক্ষেত্রে তার নাম এমনকি অভিযোগকারীর নাম ও ঠিকানা সম্পূর্ণ গোপন রেখে তদন্ত চলতে থাকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হ্যাকিং আইডি উদ্ধার করে ভিকটিমকে সহায়তা প্রদানও শুরু হয়।
উদ্ধার করে সাফল্য দেখিয়েছে পুলিশের এই বিভাগ। এরই ধারাবাহিকতায় গত মাসে যশোর সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল যশোর ৪০ টি হারানো মোবাইল, বিকাশ ও নগদে খোয়া যাওয়া ১ লাখ ৩৫ হাজার ৫শ ৬০ টাকা উদ্ধার, ৬ জন নিখোঁজ ভিকটিম উদ্ধারসহ হ্যাকিং হওয়া ৬টি ফেসবুক আইডি পুনরুদ্ধার করে। জেলার বিভিন্ন থানায় নিখোঁজ জিডি মূলে ভিকটিম উদ্ধার করে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের মাধ্যমে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।
ইনভেস্টিগেশন সেলের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকিত সরকার জানিয়েছেন, সাইবার স্পেসে যদি কোন নারী প্রতারণা বা হয়রানীর শিকার হন তবে তাদের কাছে জানাতে হবে। এই সেলের উদ্দেশ্য হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় সংগঠিত অপরাধের আইনি সহায়তা প্রদান ও এটি ব্যবহারে সর্ব সাধারণকে আরো বেশি সচেতন করা। একই সাথে অপরাধীকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা। ইতিমধ্যে সেলটি কৌশলী তদন্ত ও অভিযানে সাফল্য দেখাতে শুরু করেছে। পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ইউনিট মামলা অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরির সূত্র ধরে কাজ শুরু করেছে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park