শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
খুলনায় পাঁচ দিনব্যাপী জাতীয় পিঠা উৎসবের উদ্বোধন স্ত্রী ও তিন সন্তানকে নিয়ে পাশাপাশি শায়িত হলেন মোবারক কে কোন মন্ত্রণালয় পেলেন নতুন প্রতিমন্ত্রীরা ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন সভাপতি রায়হান, সম্পাদক ফয়সাল যে কোন ধর্মীয় উৎসব সকলের মাঝে সম্প্রীতি বন্ধনের সৃষ্টি করে : ভূমিমন্ত্রী বাগেরহাটের রামপালে সাংবাদিক তুহিনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে দূর্ধর্ষ চুরি পাইকগাছায় জুয়ার সরঞ্জাম ও নগদ অর্থ সহ জুয়াড়ি আটক-৮ বেইলি রোডে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নারী-শিশুসহ এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪৫ জন খুলনার বইমেলায় পৌনে ৫ কোটি টাকার বই বিক্রি কাচ্চি ভাই’‌তে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১১ ইউনিট

ভুয়া ওয়ারেন্টে হয়রানির শিকার ডুমুরিয়ার এক মুক্তিযোদ্ধার সন্তান!

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ৯ জুলাই, ২০২৩

 

তুষার কবিরাজ ডুমূ্রিয়া খুলনা প্রতিনিধি।।রাঙামাটি জেলার ভুয়া গ্রেফতারী পরোয়ানায় চরম হয়রানির শিকার হয়েছেন ডুমুরিয়ার এক মুক্তিযোদ্ধার পুত্র।চক্রান্তকারীদের কারসাজি এবং কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলায় ওই ব্যক্তির হয়রানির ঘটনায় জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়,রাঙামাটি পার্বত্য জেলার কোতয়ালী থানায় গত বছর ১লা ডিসেম্বর কয়েকটি মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হয়। যার নং জিআর ৪৭৩/২২, ধারা ৪৫৭/৩৮০/৪১১ দণ্ডবিধি। চট্টগ্রাম,খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি জেলার ৮ জনকে ওই মামলার আসামি করা হয়। ওই মামলায় খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার ধামালিয়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্জুর রশিদ রনোর পুত্র আশিকুর রহমান সাগর’র (৫৭) নামে চলতি বছরের ১৪ মার্চ তারিখে ওই আদালত থেকে ভূয়া গ্রেফতারি পরোয়ানাটি জারি করা হয়। যার স্মারক নং ২২৬। গ্রেপ্তারী পরোয়ানা পেয়ে খুলনা জেলা পুলিশ সুপার চলতি বছরের ২৯ মার্চ তারিখে গ্রেফতারি পরোয়ানার সত্যতা যাচাই পূর্বক সংশ্লিষ্ট থানায় প্রেরণের জন্য খুলনা সদর কোর্ট ইন্সপেক্টরকে নির্দেশ দেন। কোর্ট ইন্সপেক্টর গত ২ এপ্রিল তৎকালিন ডুমুরিয়া কোর্টে দায়ীত্বরত জিআরও দিপংকরকে যাচাই পূর্বক সংশ্লিষ্ট থানায় প্রেরণের নির্দেশ দেন। কিন্ত জিআরও ঘটনার সত্যতা যাচাই না করে আসামি গ্রেফতার করার জন্য ওয়ারেন্টটি ডুমুরিয়া থানায় প্রেরণ করেন।
ডুমুরিয়া থানা পুলিশ আশিকুর রহমান সাগরকে গ্রেফতারে তৎপর হলে তিনি দুই মাস আত্মগোপন করে থাকেন। পরবর্তীতে সাগর গ্রেফতারি পরোয়ানার কপি যোগাড় করে লোকজন নিয়ে রাঙামাটি কগনিজেন্স আদালতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট মামলার নথিপত্র উত্তোলন করেন। তিনি দেখতে পান যে মামলায় আশিকুর রহমান সাগর নামে কোন আসামি নেই। বিষয়টি ডুমুরিয়া থানা পুলিশ জানতে পেরে কোর্ট ইন্সপেক্টর খুলনাকে অবহিত করলে তিনি রাঙামাটি সদর কোর্ট পুলিশকে ওয়ারেন্টের সত্যতা যাচাই বাছাই পূর্বক প্রতিবেদন দেয়ার জন্যে পত্র দেন। ওই পত্রের পেক্ষিতে রাঙ্গামাটি সংশ্লিষ্ট কোর্ট ইন্সপেক্টরের দেয়া প্রতিবদনের জানানো হয় যে,ওই মামলায় আশিকুর রহমান সাগর নামে কোনো আসামী নেই এবং কোর্ট থেকে কোন গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়নি। বিষয়টি অবহিত হয়ে তিনি আরো নিশ্চিত হতে রাঙামাটি বিজ্ঞ কগনিজেন্স আদালতের প্রতিবেদন চেয়ে পত্র দেন। চলতি বছরের ২০ মে ওই পত্রের জবাবে বিজ্ঞ আদালত থেকে জানানো হয় যে,রাঙামাটি জেলায় আশিকুর রহমান সাগরের বিরুদ্ধে কোন মামলা মোকদ্দমা নাই এবং তিনি ব্যক্তি হয়রানির শিকার হচ্ছেন কিনা তা যাচাই বাছাই প্রয়োজন বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন।
এ বিষয়ে জিআরও দীপংকর বলেন,বর্তমানে আমি ডুমুরিয়া কোর্টের দায়ীত্বে নেই। তবুও ওয়ারেন্টি ডুমুরিয়া থানা থেকে ফেরত এনে বিষয়টির সতত্যা নিশ্চিত হতে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কোর্ট ইন্সপেক্টর মাধ্যমে জানার চেষ্টা করবো। তবে তিনি তার দায়ীত্বে অবহেলার কথা কৌশলে এড়িয়ে যান। এ বিষয়ে হয়রানির শিকার আশিকুর রহমান সাগর ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন,আমি স্থানীয় কুচক্রী মহলের চক্রান্তের শিকার।আমি একজন বীরমুক্তিযোদ্ধার সন্তান। এ ছাড়া আমি এলাকায় বিভিন্ন সামাজিক কাজের সাথে সম্পৃক্ত। সামাজিক ভাবে আমাকে হেয় এবং সম্মান হানীর জন্যে এহেন ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে আমি শারীরিক,মানসিক এবং পারিবারিক ভাবে হয়রানির শিকার হয়েছি। আর্থিক ভাবেও ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলা এবং চক্রান্তকারীদের বিরুদ্ধে আমি আইনের আশ্রয় নিবো।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park