বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

ভাষা শহীদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত খুলনার শহীদ মিনারগুলো

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩

 

এইচ এম সাগর (হিরামন),খুলনা।। যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস পালনের জন্য ভাষা শহীদরে প্রতি বিনম্রশ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য প্রস্তুত খুলনার হাদিস পার্কের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও গল্লামারীসহ নগরীর স্থানীয় এলাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শহীদ মিনার গুলো। শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে শেষ মুহুর্তেও শহীদ মিনারের মূল বেদিসহ পুরো প্রাঙ্গণ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, লাইটিংসহ সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ। সৌন্দর্য বাড়াতে শহীদ মিনারসহ আশপাশের স্থানগুলোতে চলছে আল্পনার কাজও, ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বর্ণমালা দিয়েও। কেসিসি সূত্রে জানা গেছে, ২১ শে ফেব্রুয়ারি মহান আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস যথাযোগ্য মর্যদার পালনের উদ্দেশে কেসিসির পক্ষ হতে খুলনা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আলোকসজ্জা,পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, ধোয়া-মোছা, শহীদ বেদীতে রং করা,বর্ণমালার ব্যবহারে সুসজ্জিত করা,আল্পনাসহ বহুবিধ কাজ করা হয়েছে শহীদ মিনারকে সুসজ্জিত করে তুলতে। একই সাথে নগরীর ফুলবাড়ীগেট শহীদ মিনার, ১৫নং ওয়ার্ডে, দৌলতপুর বাসষ্ট্যান্ড শহীদ মিনার চত্ত্বরে আলোকসজ্জা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, ধোয়া-মোছা, রং করা করা, বিবিধ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মহান আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস তথা শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে প্রথম প্রহরে খুলনার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে ফুল দিয়ে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, শহীদ হাদিস পার্কে আলোচনা সভা, বই মেলায় সেমিনার ও আলোচনাসহ নানা কর্মসূচি পালিত হবে। একই সাথে বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো প্রথম প্রহরে ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাবেন। চলবে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি। সাবেক কাউন্সিলর মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, মাতৃভাষার জন্য যারা জীবন দিয়েছেন, তাদের কাছে আমরা চির ঋণী। সর্বক্ষেত্রে বাংলা ভাষার প্রয়োগ করা উচিত বলে আমি মনে করি, কারণ বাংলা ভাষা আমাদের অহংকার, অলংঙ্কার। দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আনিসুর রহমান জানান, শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ইতোমধ্যে শহীদ মিনার প্রস্তুত করা হয়েছে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, ধোয়া-মোছা সম্পন্ন হয়েছে। প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হবে। সকালে প্রভাত ফেরী, আলোচনা সভা, দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। দৌলতপুর সরকারি মুহসিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) শহিদুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার জানান, খুলনা প্রশাসক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন,ইতোমধ্যে শহীদ মিনারের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষাথীর সমান্বয়ে প্রভাত ফেরী, আলোচনা সভা, প্রতিযোগীতা, দোয়া মোনাজাতসহ নানা কর্মসূচি পালিত হবে। কেসিসি’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মিঠু জানান, কেসিসির পক্ষ হতে খুলনা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আলোকসজ্জা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, ধোয়া-মোছা, শহীদ বেদীতে রং করা, বর্ণমালার ব্যবহারে সুসজ্জিত করা, আল্পনাসহ বহুবিধ কাজ করা হয়েছে শহীদ মিনারকে সুসজ্জিত করে তুলতে। একই সাথে নগরীর ফুলবাড়ীগেট শহীদ মিনার, ১৫নং ওয়ার্ডে, দৌলতপুর বাসষ্ট্যান্ড শহীদ মিনার চত্ত্বরে আলোকসজ্জা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, ধোয়া-মোছা, রং করা করা, বিবিধ কাজ সম্পন্ন হয়েছে, রাখা হয়েছে বিদ্যুৎতের বিকল্প ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। খুলনা জেলা প্রশাসক খন্দকার ইয়াসির আরেফীন জানান,মহান আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস তথা শহীদ দিবস উপলক্ষ্যে প্রথম প্রহরে খুলনার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদীতে ফুল দিয়ে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন,শহীদ হাদিস পার্কে আলোচনা সভা, বই মেলায় সেমিনার ও আলোচনাসহ নানা কর্মসূচি পালিত হবে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park