বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছায় বাল্য বিবাহ বন্ধ সহ অর্থ দন্ড প্রদান করেন-ইউএনও মাহেরা নাজনীন খুলনার গাইকুরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রামপালে উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১২ জনের মনোনয়নপত্র জমা পূত্র পাচারের অভিযেগে এক নারীর বিরুদ্ধে আড়ংঘাটা থানায় অভিযোগ দিঘলিয়া উপজেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত মোংলা-ঘোষিয়াখালী চ্যানেলের তীরভূমি দখলের মহোৎসব; নাব্যতা সঙ্কটের শংকা পাইকগাছায় ১ম ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ একাডেমির উদ্বোধন খুলনায় পহেলা বৈশাখ উদযাপন বাঙালি জাতির শাশ্বত ঐতিহ্যের প্রধান অঙ্গ পহেলা বৈশাখ : রাষ্ট্রপতি মুক্তিপণ পেয়ে জাহাজ ছাড়ে জলদস্যুরা, নাবিকরা সুস্থ : মালিক পক্ষ

বটিয়াঘাটায় তীব্র লোডশেডিংএ অতিষ্ঠ জন-জীবন

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ জুন, ২০২৩

 

এইচ এম সাগর (হিরামন) খুলনা ব্যুরো।।খুলনার বটিয়াঘাটায় গত এক সপ্তাহে তীব্র দাবদাহ ও ব্যাপক লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে জনজীবন। ঘন্টায় ঘন্টায় বিদ্যুতের আসা-যাওয়ার লুকোচুরি খেলায় চরম বেকায়দায় পড়েছেন এই উপজেলার মানুষ।

বেশ কিছুদিন ধরেই খুলনা জেলায় এমন প্রচন্ড খরতাপ বিরাজ করছে।এ কারণে ভ্যাপসা গরমে মানুষের জীবন অতিষ্ট হয়ে পড়েছে।অপরদিকে গত কয়েকদিন ধরে বাড়ছে লোডশেডিং। ঘন্টায় ঘণ্টায়  লোডশেডিং এর কারনে মিল কারখানায় ঠিকমতো কাজ পরিচালিত হচ্ছে না।। শ্রমিকরা কাজে আসলেও বিদ্যুতের অভাবে শ্রমিকদের বসে থাকতে হচ্ছে। অপরদিকে সন্ধ্যার পর এ অবস্থা আরো কঠিন আকার ধারণ করে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিংয়ে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। যখন সব জায়গায় তাপদাহে মানুষ হাঁপিয়ে উঠছে ঠিক তখনই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৮ থেকে ৯বার লোডশেডিং দেয়া হচ্ছে। এতে শিল্প-কারখানায় উৎপাদন কমে যাওয়ায় ব্যাপক ক্ষতির হিস্যা গুনতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠান মালিকদের। অন্যদিকে তীব্র তাপদাহে ক্রেতারা নিজস্ব জেনারেটর চালিত এসিযুক্ত দোকানে কেনা কাটা করতে চলে যাওয়ায় ক্রেতা সংকটে ভুগছেন ফুটপাতের হকার ও ছোট আকারের দোকানীরা।তাপদাহের মধ্যে লোডশেডিং দেয়ায় বাসা-বাড়িসহ সর্বত্ব অবস্থান নেয়া মানুষ হাঁপিয়ে উঠছে।
বিদ্যুৎ বিভাগের জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহের যে পরিসংখ্যান দিচ্ছে তা বাস্তবের সঙ্গে কোনো মিল নেই। বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তাদের ভাষ্যমতে,বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়লেও তা চাহিদার তুলনায় কম হওয়ায় লোডশেডিং দিতে হচ্ছে।এবিষয়ে উপজেলার বাসিন্দা নুর ইসলাম বলেন, বিদ্যুৎ বিভাগের লোডশেডিংয়ের রোস্টার না মেনেই ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিং জনজীবনকে বিষিয়ে তুলেছে। এই অবস্থায় তীব্র গরমে হাঁসফাঁস করছে মানুষ। অপরদিকে ব্যবসা-বাণিজ্যেও নেমে এসেছে স্থবিরতা। উপজেলার বারোআড়িয়া এলাকার কৃঞ্চপদ মন্ডল বলেন,এই তীব্র গরমের ভিতর এত বেশি লোডশেডিং মেনে নিতে পারছিনা।দিন রাত এ লোডশেডিংয়ে উপজলা শহরসহ গ্রামঅঞ্চলের শিশু ও বৃদ্ধ মানুষ অসহ্য যন্ত্রণায় রয়েছে। লোডশেডিং রোধে চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ উৎপাদনে জোর দেওয়া জরুরী। মুদি ব্যবসায়ী চয়ন মন্ডল সহ অনেকে জানিয়েছেন,ব্যবসা-বাণিজ্যের অনেক কিছু নির্ভর করে বিদ্যুতের ওপর। কিন্তু অতি মাত্রায় লোডশেডিংয়ের কারণে এখন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সচল রাখাই কষ্টকর হয়ে দাঁড়িয়েছে।

খুলনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মোঃ জিল্লুর রহমান বলেন,পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ হয়ে যাওয়াতে বিদ্যুৎ এর ঘাটতি দেখা দিয়েছে।যদি বৃষ্টি হয় তাহলে লোডশেডিং একটু কমবে এবং পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু হলে আগামী মাস থেকে বিদ্যুৎএর ঘাটতি না থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park