বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছায় বাল্য বিবাহ বন্ধ সহ অর্থ দন্ড প্রদান করেন-ইউএনও মাহেরা নাজনীন খুলনার গাইকুরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রামপালে উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১২ জনের মনোনয়নপত্র জমা পূত্র পাচারের অভিযেগে এক নারীর বিরুদ্ধে আড়ংঘাটা থানায় অভিযোগ দিঘলিয়া উপজেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত মোংলা-ঘোষিয়াখালী চ্যানেলের তীরভূমি দখলের মহোৎসব; নাব্যতা সঙ্কটের শংকা পাইকগাছায় ১ম ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ একাডেমির উদ্বোধন খুলনায় পহেলা বৈশাখ উদযাপন বাঙালি জাতির শাশ্বত ঐতিহ্যের প্রধান অঙ্গ পহেলা বৈশাখ : রাষ্ট্রপতি মুক্তিপণ পেয়ে জাহাজ ছাড়ে জলদস্যুরা, নাবিকরা সুস্থ : মালিক পক্ষ

দ্রব্যমূল্য ও বাজার ব্যবস্থায় সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেই

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৪ মার্চ, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক।। দ্রব্যমূল্য ও বাজার ব্যবস্থায় সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই বলে দাবি করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

তিনি বলেন, করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্ব অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত। বাংলাদেশকেও এই ধাক্কা সামলাতে হচ্ছে। এরমধ্যেও দেশের মাথাপিছু আয় ও রিজার্ভ বৃদ্ধির চেষ্টা চলছে। পদ্মা সেতু, কর্ণফুলি টানেল, মেট্রোরেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের মতো বড় বড় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে; যা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সক্ষমতা প্রকাশ করে। কিন্তু এই উন্নয়নের ছোঁয়া গ্রামাঞ্চলের গরিব ও শ্রমজীবী মানুষ পাচ্ছে না। যাদের কারণে অর্থনৈতিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেই প্রবাসী শ্রমিক, গার্মেন্টস শ্রমিক ও গ্রামের কৃষক-ক্ষেতমজুররা উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

শনিবার (৪ মার্চ) দুপুরে সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সাতক্ষীরা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি এই জনসভার আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের সাতক্ষীরা জেলা সভাপতি উপাধ্যক্ষ মহিবুল্লাহ মোড়ল।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় পলিটব্যুরোর সদস্য ও সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, যশোর জেলার সভাপতি অ্যাড. আবু বক্কার সিদ্দিকী, যশোর জেলার সাধারণ সম্পাদক শবদুল হোসেন খান, কেন্দ্রীয় যুবমৈত্রীর সহসভাপতি অনুপ কুমার পিন্টু। সভা পরিচালনা করেন সাতক্ষীরা জেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. ফাহিমুল হক কিসলু।

রাশেদ খান মেনন বলেন, দফায় দফায় তেল, গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রভাব পড়ছে কৃষিক্ষেত্রে ও দ্রব্যমূল্যের ওপর। কৃষি উৎপাদন খরচও বেড়ে যাচ্ছে। কৃষকদের উৎপাদন ব্যয় বাড়লেও তারা ফসলের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছে না। তা ছাড়া কৃষিতে রয়েছে বাজার সিন্ডিকেট। যারা রাতারাতি ইচ্ছেমতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি করছে। দ্রব্যমূল্য ও বাজার ব্যবস্থায় নেই সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি দীর্ঘদিন থেকে রাজপথে এবং সংসদে পূর্ণাঙ্গ রেশনিং ব্যবস্থা, ষাটোর্ধ্ব সকল নাগরিককে পেনশন স্কিম, খেতমজুরদের রেজিস্ট্রেশন ও সারা বছর কাজের দাবিতে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। সরকার ওএমএস, ১০ কেজি ও ৩০ কেজি চালের কার্ড চালু করলেও সেখানে চলছে দলীয়করণ ও দুর্নীতি। সেজন্য আমরা সার্বজনীন রেশনিং ব্যবস্থা চালুর দাবি করছি।

১৪ দলীয় জোট ২০০৮ সালে সরকার গঠন করে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার রায় বাস্তবায়ন ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্যক্রম শুরু করে। বিচারের রায় বাস্তবায়ন হচ্ছে। যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধী রাজনৈতিক শক্তির মৌলবাদী অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। যার মাধ্যমে তারা অর্থপাচার ও সাম্প্রদায়িক তৎপরতা চালাচ্ছে। রাজনৈতিক দলের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করলেও তাদের রাজনৈতিক তৎপরতা বন্ধ করেনি। প্রকারান্তরে হেফাজতে ইসলাম নামের সাম্প্রদায়িক শক্তির কাছে মাথানত করে আমাদের পাঠ্যপুস্তক থেকে অসাম্প্রদায়িক লেখাগুলোকে বাদ দিয়ে শিক্ষা ব্যবস্থাকে সাম্প্রদায়িক করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, অপরদিকে ২০১৩-১৪ সালে জামায়াতে ইসলামী দ্বারা সংঘঠিত হত্যাকাণ্ড ও নাশকতা মামলার বিচার এখনও পর্যন্ত বাস্তবায়ন হয়নি। মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে অর্জিত ’৭২-এর সংবিধান বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি থাকলেও রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম বহাল আছে।

মেনন বলেন, আমরা ১৯৯৭ সাল থেকে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলসহ সাতক্ষীরাকে জলাবদ্ধতার হাত থেকে রক্ষার জন্য নদী রক্ষা ও জলাবদ্ধতা নিরসনে টিআরএম ব্যবস্থা চালুর জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছি। নদীগুলোকে ছোট খালে পরিণত করা হচ্ছে। যার ফলে জলাবদ্ধতা দূর না হয়ে জনদুর্ভোগ বাড়ছে।

তিনি বলেন, এক শ্রেণির দুর্নীতিবাজ ও লুটপাটকারী দেশের সম্পত্তি বিদেশে পাচার করছে। ফলে ধনীরা আরও ধনী হচ্ছে আর মধ্যবিত্ত ও গরিবরা আরও গরিব হচ্ছে। দিন দিন ধনী দরিদ্রের ব্যবধান বাড়ছে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park