বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছার গদাইপুর ইউ’পিতে ১৫৪৭টি পরিবারের মাঝে টিসিবি পন্য বিতরণ খুলনায় ই-গভর্ন্যান্স ও উদ্ভাবন উদ্যোগ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত বাগেরহাটের রামপালে ইছালে ছওয়াব মাহফিলের রান্না করা মাংশ বিক্রি করায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভ পুলিশ ও র‍্যাব এর যৌথ অভিযানে উদ্ধার হলো মহাসিন স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পূত্র শাফিন বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড আজ কেসিসির সাবেক কাউন্সিলর পিন্টুর বাসভবনে হামলার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন পাইকগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পানি সংরক্ষণের জলাধার বিতরণ খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা ছোট পর্দার অভিনেতা রুমির ইন্তেকাল

দেশে গণতন্ত্র হারিয়ে গেছে!

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৭ নভেম্বর, ২০২২

হারানো গণতন্ত্র না ফেরা পর্যন্ত লড়াই চলতে থাকবে বলে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আজকের দিনে আমাদের শপথ হচ্ছে পুরো বাংলাদেশ যে লড়াই করছে, এই লড়াইকে আমরা চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যাব।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে গণতন্ত্র হারিয়ে গেছে। আমরা গণতন্ত্রকে মুক্ত করব। একইসঙ্গে দেশের মানুষকে মুক্ত করে একটি গণতান্ত্রিক সমাজ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করব।

সোমবার (৭ নভেম্বর) ‘বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষ্যে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে দলটির প্রতিষ্ঠানে জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা ও ফাতিহা পাঠ শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদের যে দর্শন সে দর্শন সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছে। তারই ফলশ্রুতিতে এখনো আমাদের হারিয়ে যাওয়া গণতন্ত্রকে ফিরে পাওয়ার জন্য, হারিয়ে যাওয়া বাংলাদেশকে ফিরে পাওয়ার জন্য, অর্থনীতিকে মুক্ত করার জন্য পুরো বাংলাদেশ লড়াই করছে। আমরা লড়াই করছি গণতন্ত্রের মাতা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য। আমার লড়াই করছি আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মুক্ত করার জন্য। রাজনৈতিক কারণে যেসব নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে তাদের মুক্তি করার জন্য। সামগ্রিক অর্থে গণতন্ত্রকে ফিরে পাওয়া, ভোটের অধিকারকে ফিরে পাওয়া, বেঁচে থাকার অধিকারকে ফিরে পাওয়া, একটি মুক্ত সমাজ সমৃদ্ধি অর্থনীতিকে ফিরে পাওয়ার জন্য আমরা লড়াই করছি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মানুষ যে স্বাধীনতার যুদ্ধ হয়েছিল, সেই যুদ্ধের ফলশ্রুতি স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বকে সুসংগঠন করার জন্য দেশের শত্রুদের পরাজিত করে সেদিন দেশপ্রেমিক জনতা বাংলাদেশকে রূপান্তর করেছিলাম। তারই ধারাবাহিকতায় পরবর্তীকালে দেখেছি ভয়াবহ একদলীয় শাসনব্যবস্থার পরিবর্তে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হয়েছে। একটি আধুনিক বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য নতুন অর্থনৈতিক ধারা মুক্ত অর্থনীতি শুরু হয়েছিল।

এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনে উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন, বিএনপি নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, ফজলুর রহমান খোকন, মীর সরাফত আলী সপু ও আমিনুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park