বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছায় বাল্য বিবাহ বন্ধ সহ অর্থ দন্ড প্রদান করেন-ইউএনও মাহেরা নাজনীন খুলনার গাইকুরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার রামপালে উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১২ জনের মনোনয়নপত্র জমা পূত্র পাচারের অভিযেগে এক নারীর বিরুদ্ধে আড়ংঘাটা থানায় অভিযোগ দিঘলিয়া উপজেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপিত মোংলা-ঘোষিয়াখালী চ্যানেলের তীরভূমি দখলের মহোৎসব; নাব্যতা সঙ্কটের শংকা পাইকগাছায় ১ম ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ একাডেমির উদ্বোধন খুলনায় পহেলা বৈশাখ উদযাপন বাঙালি জাতির শাশ্বত ঐতিহ্যের প্রধান অঙ্গ পহেলা বৈশাখ : রাষ্ট্রপতি মুক্তিপণ পেয়ে জাহাজ ছাড়ে জলদস্যুরা, নাবিকরা সুস্থ : মালিক পক্ষ

চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণার মাধ্যমে ১৬ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ, থানায় জিডি

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শনিবার, ১ অক্টোবর, ২০২২

কাগজ ডেস্ক/চাকরি দেওয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক চক্র । এঘটনায় ভুক্তভোগি খানহাহান আলী থানায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে ১৮ সেপ্টেম্বর সাধারন ডায়েরী করেছেন যার নং ৭৬৫।

তারা হলেন, খানজাহান আলী থানার আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের শিরোমনি গ্রামের হাসানের স্ত্রী শাহীনুর বেগম (৪১) ইয়াকুব শেখের পুত্র বাবু শেখ (৪০)ও একই এলাকার আজিজুল (৩৫) ।

এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, এলাকার মানুষকে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এই প্রতারক চক্রটি । একবার তাদের হাতে টাকা গেলে সেই টাকা কেউ ফেরত পেয়েছেন এমন নজির নেই। চাকরি তো দূরের কথা, টাকা চাইতে গেলে উল্টো প্রাণনাশের হুমকি দেয় । এসব অপরাধের অভিযোগে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে একাধিক অভিযোগ। তাদের বিরুদ্ধে থানায় আছে লিখিত অভিযোগ ও জিডি।

জানা গেছে, নড়াইল, পাবনা, খুলনা, রাজশাহীসহ বিভিন্ন জায়গায় একেক সময় অবস্থান করে বড় বড় রাজনৈতিক নেতাদের খুবই কাছের লোক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জনকে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তর বা প্রতিষ্ঠানে চাকরি দেওয়ার নাম করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এই চক্রটি। যখনি কোন সমস্যা হয় তখনই স্থান পরিবর্তন করে অন্য জায়গা অবস্থান করে এই চক্রটি। অবস্থান পরিবর্তন করে আবার শুরু করতো সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা।

২০২০ সালের ২ মার্চ শিরোমনি গ্রামের ইউনুছ সিকদারের কন্যা শিরিনা খাতুন (৪১) এর কাছ থেকে তাকে এসেনসিয়াল ড্রাগ (ল্যাাটেক্স) এ চাকুরী দেওয়ার নামে প্রতারনার মাধ্যমে ১৬ লক্ষ টাকা নেয়। প্রায় আড়াইবছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও চাকুরী না হওয়ায় বিবাদীদের নিকট তিনি টাকা ফেরত চাইলে তাকে বিভিন্নধরণের হুমকিসহ প্রাননাশের হুমকি প্রদান করা হয়। সর্বশেষ গত ১৭ সেপ্টেম্বর বেলা আড়াইটার দিকে শিরিনা খাতুন তারা পিত্রালয়ে যাওয়ার পথে বিবাদীরা অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনকে সাথে নিয়ে শিরিনা খাতুনকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে।

খানজাহান আলী থানার ওসি মোঃ কামাল হোসেন খান বলেন এ ব্যাপারে থানায় সাধারণ ডায়েরী হয়েছে। তদন্তের কার্যক্রম চলছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থ্যা গ্রহন করা হবে।

ভুক্তভোগী শিরিনা খাতুন বলেন চাকরী দেয়ার আশ্বাসে ১৬ লক্ষ টাকা প্রতারণ করে আমার কাছ থেকে নেওয়া হলো । আড়াইবছরে তারা আমাকে চাকরী দিতে পারেনি। টাকা চাইতে গেলে তারা আমাকে হুমকি দিচ্ছে। চাকরীর জন্য তিনি জমি বিক্রি ও বিভিন্ন এনজিও থেকে টাকা তুলে তাদের দিয়েছেন। অসহায় হয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তিনি।

স্থানিয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মনিরুল ইসলাম বলেন গত ১৫ সেপ্টেম্বর শিরিনা খাতুন এর কাছ থেকে একই এলাকার ৩ জন চাকরী দেওয়া বাবদ জালিয়াতীর মাধ্যমে ১৬ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে এমন অভিযোগে ইউনিয়ন পরিষদে এসেছে। এ ব্যাপারে ২৫সেপ্টেম্বর সন্ধায় শুনানী হয় এবং ২ একদিনের মধেই উক্ত শালিশ নামার প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park