মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পুলিশ ও র‍্যাব এর যৌথ অভিযানে উদ্ধার হলো মহাসিন স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পূত্র শাফিন বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড আজ কেসিসির সাবেক কাউন্সিলর পিন্টুর বাসভবনে হামলার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন পাইকগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পানি সংরক্ষণের জলাধার বিতরণ খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা ছোট পর্দার অভিনেতা রুমির ইন্তেকাল প্রচণ্ড দাবদাহে খুলনায় কেএমপি কমিশনারের উদ্যোগে বিশুদ্ধ খাবার পানি, জুস ও স্যালাইন বিতরণ খুলনা আড়ংঘাটা বাইপাস আকমলের মোড়ে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার আইজিপি কাপ ক্রিকেটে পুলিশ স্টাফ কলেজ তৃতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন এবং খুলনা রেঞ্জ রানার আপ

ঘের দখল চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : রবিবার, ৮ জানুয়ারি, ২০২৩

বাগেরহাট প্রতিনিধি।।বাগেরহাটে মৎস্য ঘের দখল চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। রবিবার (০৮ জানুয়ারি) বিকেলে বাগেরহাট সদর উপজেলার বড় বাঁশবাড়িয়া এলাকায় ঘের মালিক ও এলাকাবাসীরা এই মানববন্ধন করেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, ঘের ও জমির মালিক মোঃ কাওছার হোসেন জুয়েল, স্থানীয় রুহুল আমিন, তারেক, হাসিব হাওলাদার, মোঃ হেমায়েত হোসেন, মোঃ আজিম, লিমা বেগম, তাছলিমা বেগম, শাহিনুর বেগম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বসতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল অন্যায়ভাবে ঘের দখলের চেষ্টা করছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। আমরা চাই এলাকার মানুষ শান্তিতে তাদের নিজেদের জমি ভোগ দখল করুক।

ঘের ও জমির মালিক মোঃ কাওছার হোসেন জুয়েল বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বড় বাঁশবাড়িয়া মৌজায় ৫২ বিঘা জমিতে আমরা পারিবারিক ভাবে মৎস্য ঘের করি। এর মধ্যে বেশিরভাগ জমি আমার বাবা ও আত্মীয় স্বজনের। কিন্তু হঠাৎ করে রামপাল উপজেলার বাঁশতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল এই ঘেরটি দখলের চেষ্টা শুরু করেন। তাকে ঘের করার সুযোগ দিতে আমাকে ও আমার ভাইদের হুমকী ধামকী দেওয়া শুরু করে।

২ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ৩০ টি মোটরসাইকেলে শতাধিক লোক নিয়ে আমাদের বাড়ি ঘেরাও করে। আমার বড় ভাই জিলাম হাওলাদার ও আমাকে উঠিয়ে নেওয়া ও মারধরের চেষ্টা করে। জীবন বাঁচাতে আমার ভাই তার লাইসেন্সকৃত বন্ধুক দিয়ে ফাকা গুলি করে। আমরা ৯৯৯ এ ফোন করলে বাগেরহাট মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছায়। পুলিশের উপস্থিতিতে তারা চলে যায়। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী করতে হবে বলে পুলিশ আমার ভাইকে নিয়ে আসেন। পরে চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলকে গুলির ঘটনায় মামলা দায়ের করে আমার ভাইকে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। যা স্পষ্ট অন্যায়।

 

তিনি আরও বলেন, এত কিছুর পরেও মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল ও তার লোকজন থেমে থাকেনি, আমাদের ঘের থেকে মাছ ধরে নিয়ে গেছে। আমাদের উপর হামলা করার চেষ্টা করছে। আমাদের আত্মীয় স্বজনদেরও হয়রানির চেষ্টা করছে। আমরা যাতে হয়রানি মুক্তভাবে মৎস্য ঘের ভোগদখল করতে পারি এ জন্য বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময় ও পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

রুহুল আমিন নামের এক বৃদ্ধ বলেন, চেয়ারম্যান সোহেল যে ঘের দখল করতে চায়, এই ঘেরের মধ্যে কি তার বা তার বাপ-দাদার জমি আছে? এখানে তাদের কোন জমি নাই। তাইলে কেন সে এই ঘের দখল করতে চায়। শুধু রুহুল আমিন না, স্থানীয় আরও অনেকে একই প্রশ্ন করে বিষ্ময় প্রকাশ করেন জমির মালিকানা না থাকার পরেও কেন একজন জন প্রতিনিধি ঘের দখলের চেষ্টা করবেন।

মানবন্ধন শেষে জমি যার, ঘের তার স্লোগানে বিক্ষোভ মিছিল করেন স্থানীয়রা। মিছিল থেকে চেয়ারম্যান সোহেল ও তার লোকজনের হাত থেকে সাধারণ মানুষের মুক্তি চাওয়া হয়।

অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল বলেন,আমি বড়বাঁশবাড়িয়া এলাকায় বিভিন্ন জমির মালিকদের কাছ থেকে জমি লিজ নিয়ে মাছের ঘের পরিচালনা করে আসছি।

 

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park