সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বটিয়াঘাটায় কৃষি ব্যাংক কর্তৃক গ্রাহক সেবা উন্নয়ন বিষয় মতবিনিময় সভা ইবাদত বন্দেগী আর ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র শবে বরাত পালিত বাংলাদেশের বিচারকাজ পর্যবেক্ষণ করলেন ভারতের প্রধান বিচারপতি গর্ভের সন্তানের লিঙ্গ পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না: হাইকোর্ট বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৫০ নারী, গেজেট মঙ্গলবার পাইকগাছায় ৫০০’গ্রাম গাঁজা সহ আটক-২ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফরহাদ সরদার রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) প্রাপ্তির জন্য নির্বাচিত খুলনায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে চারটি দোকান ভস্মীভূত কুরআন ও দ্বীনি শিক্ষা শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় মূল্যবোধের আদর্শ নাগরিক গড়ে তুলবে ; শেখ জুয়েল এমপি নগরীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় যুবক নিহত

খুলনার সাবেক মেয়রকে ভুয়া চিঠিতে হয়রানি : সাউথ বাংলা ব্যাংকের তিনকর্তা বরখাস্ত

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩১ মে, ২০২৩

 

স্টাফ রিপোর্টার:খুলনা সিটি করপোরেশনের সদ্য সাবেক মেয়র তালুকদার আবদুল খালেকের ‘প্রজেক্ট ৬০০ ক্রোর’–এর হিসাব চাওয়ার ভুয়া চিঠি তৈরীর অভিযোগে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের তিন কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন।

বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) সাবেক মেয়রের কাছে তথ্য চেয়েছে বলে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের একটি চিঠিতে বলা হয়। অথচ ওই বিষয়ে আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থাটি কোন পদক্ষেপই নেয়নি। সূত্র : প্রথম আলো অনলাইন

জানা গেছে, বিএফআইইউর নাম ব্যবহার করে একটি চিঠি সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের (এসবিএসি) প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মাসুদুর রহমানের পক্ষ থেকে খুলনা শাখায় পাঠানো হয়। বিষয়টি বিএফআইইউয়ের নজরে এলে সংস্থাটি খতিয়ে দেখে যে এসবিএসি ব্যাংকের কাছে এমন কোনো তথ্য জানতে চাওয়া হয়নি।

এর ঘটনার পর ব্যাংকটির সিএফওসহ জড়িত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠি দেয় বিএফআইইউ। এরপর ব্যাংকটি মঙ্গলবার (৩০ মে) সিএফও মাসুদুর রহমান, প্রধান অর্থ পাচার প্রতিরোধ কর্মকর্তা মজিবর রহমান ও ব্যাংকটির খুলনা শাখার ব্যবস্থাপক বিধান কুমার সাহাকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।

বিএফআইইউ ও এসবিএসি ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, এক সময় এসবিএসি ব্যাংকের পরিচালক ও ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন তালুকদার আবদুল খালেক। তখন ব্যাংকটির চেয়ারম্যান ছিলেন এস এম আমজাদ হোসেন। ২০২১ সালে ব্যাংকটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেন আবদুল কাদির মোল্লা। এরপর আমজাদ হোসেনসহ কয়েকজন পরিচালক ব্যাংকটি থেকে বাদ পড়েন। তালুকদার আবদুল খালেকও আর ব্যাংকটির পরিচালক পদে নেই।

তবে ব্যাংকটির বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের নির্দেশে সাবেক কয়েকজন পরিচালককে হেনস্তা করেছে ব্যাংকটি এমন অভিযোগ করেছে বিএফআইইউ ও ব্যাংকের সূত্রগুলো। এর ধারাবাহিকতায় বিএফআইইউয়ের নাম ব্যবহার করে এই চিঠি দেওয়া হয় বলে তারা মনে করে। তবে এই অভিযোগের বিষয়ে পরিচালনা পর্ষদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এসবিএসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে পাঠানো চিঠিতে বিএফআইইউ লিখেছে, অভ্যন্তরীণ পত্র যোগাযোগে বিএফআইইউয়ের নাম ব্যবহার করা হয়েছে। যে তথ্য চাওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে, সে সংক্রান্ত কোনো তথ্য চায়নি বিএফআইইউ। এ জন্য কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তা জানতে চায় সংস্থাটি।

এ নিয়ে কথা বলতে এসবিএসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমানকে ফোন করা হলে তিনি সাড়া দেননি

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park