মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১১:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পাইকগাছার গদাইপুর ইউ’পিতে ১৫৪৭টি পরিবারের মাঝে টিসিবি পন্য বিতরণ খুলনায় ই-গভর্ন্যান্স ও উদ্ভাবন উদ্যোগ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত বাগেরহাটের রামপালে ইছালে ছওয়াব মাহফিলের রান্না করা মাংশ বিক্রি করায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভ পুলিশ ও র‍্যাব এর যৌথ অভিযানে উদ্ধার হলো মহাসিন স্কুলের প্রধান শিক্ষকের পূত্র শাফিন বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি যুবক নিহত দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড আজ কেসিসির সাবেক কাউন্সিলর পিন্টুর বাসভবনে হামলার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন পাইকগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পানি সংরক্ষণের জলাধার বিতরণ খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা ছোট পর্দার অভিনেতা রুমির ইন্তেকাল

খুলনায় এবার ৩ লাখ ৫ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

খুলনার কাগজ
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৬ জুন, ২০২৩

 

স্টাফ রিপোর্টার।।বাংলাদেশ থেকে অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব নির্মূল এবং শিশুমৃত্যু প্রতিরোধ করার জন্য আগামী ১৮ জুন (একদিন) সারাদেশে পালিত হবে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন। এবারে খুলনা জেলায় মোট ৩ লাখ ৫ হাজার ৮০৪ জন শিশুকে এই ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর স্কুল হেলথ ক্লিনিকের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিকদের ওরিয়েন্টেশন কর্মশালায় এ তথ্য জানানো হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনার সিভিল সার্জন ডাঃ সুজাত আহমেদ। তিনি বলেন, জাতির ভবিষ্যৎ শিশুদের কথা চিন্তা করে সরকার জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন চালু করেছে। সকলের সার্বিক প্রচেষ্টায় দেশে মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুহার হ্রাস পেয়েছে, টিকাদানের হার বৃদ্ধি পেয়েছে। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুলের কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। শিশুদের ভরা পেটে এটি খাওয়াতে হবে। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইনে কোন শিশু যাতে বাদ না পড়ে সে জন্য অভিভাবকদের দায়িত্ব হলো শিশুদের টিকাকেন্দ্রে নিয়ে আসা। এই ক্যাম্পেইন সফল করতে সিভিল সার্জন গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় জানানো হয়, খুলনা মহানগরীতে মোট এক লাখ ১৭ হাজার ৫৭ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ১৩ হাজার পাঁচ শত ৭৩ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা এক লাখ ৩৪ হাজার ৮৪ জন। এছাড়া খুলনা জেলার নয়টি উপজেলা এবং দুইটি পৌরসভার মোট ১ লাখ ৮৮ হাজার সাতশত ৪৭ জন শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ২৩ হাজার ৯৪ জন এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ১ লাখ ৬৫ হাজার ছয়শ ৫৩ জন।

এ বছর সিটি কর্পোরেশনের ৩১টি ওয়ার্ডে ৭২০ টি কেন্দ্রে মোট এক হাজার চারশত ২০ জন ভলান্টিয়ার এ কাজে দায়িত্ব পালন করবে। এছাড়া খুলনা জেলার ৯টি উপজেলা ও দুইটি পৌরসভায় মোট টিকাকেন্দ্রের সংখ্যা এক হাজার সাতশ ১৮টি। এর মধ্যে আউটরীচ টিকাদান কেন্দ্র এক হাজার ছয়শ ৩২টি, স্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র ০৯টি, অতিরিক্ত কেন্দ্র ৬৮টি এবং ভ্রাম্যমাণ টিকাদান কেন্দ্র ৯টি। জেলা পর্যায়ের কার্যক্রমে মোট স্বেচ্ছাসেবকের সংখ্যা তিন হাজার চারশ ৩৪ জন, সরকারি মাঠকর্মীর সংখ্যা ৬৭৭ জন এবং বেসরকারি মাঠকর্মীর সংখ্যা দুই হাজার সাতশত ৫৯ জন।

কর্মশালায় কেসিসি’র প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা স্বপন কুমার হালদার, খুলনা আঞ্চলিক তথ্য অফিসের উপপ্রধান তথ্য অফিসার এ এস এম কবীর, প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম নজরুল ইসলাম, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ এএসএম কামাল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। খুলনা সিভিল সার্জন দপ্তর এবং সিটি কর্পোরেশন যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

কর্মশালায় সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা অংশ নেন।

 

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Khulnar Kagoj
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট Shakil IT Park